ফায়ার সার্ভিসের শতাদিক কর্মী করোনায় আক্রান্ত

ফায়ার সার্ভিসের শতাদিক কর্মী করোনায় আক্রান্ত

সারা পৃথিবির এক অন্যতম আতংক করোনা ভাইরাস ।সারা পৃথীবি এই করোনা বিরুদ্ধে জুদ্ধ ঘোষনা করেছে ।সারা পৃথীবির মতো বাংলাদেশও করোনার এই মহামারী ,করোনার এই ভয়াল গ্রাস থেকে বাচতে পারে নি ।গত মার্চ মাসে বাংলাদেশে প্রথমকরোনা রোগী শনাক্ত হয় ।এর পর থেকেই বাংলাদেশে শুরু হয়েছে ্করোনা ভাইরাস এর প্রকোপ । করোনার এই ভয়াল গ্রাস থেকে বাচতে পারছে না কেউ। পুরুষ,মহিলা,বৃদ্ধ,যুবুক, এমনকি মায়ের কোলের ছোট্ট শিশুটিকেও ছারে নি এই করোনা ।শুধু সাধারন মানুষ-ই নন সমাজের উচু-নিচু, মধ্যবিত্ত-নিম্ন বিত্ত,  ধনী,দরিদ্র কাউকে ছারে নি এই করোনা ভাইরাস । 
এমনকি ছারেনি প্রশাসনকেও ।

ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন পুলিশ আর্মি সহো প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারী ।এতোদিন এই কাতারে না থাকলেও  এবার সেই কাতারে যোগ হলো ফায়ার সার্ভিস এর নামও ।
 
বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর ১১৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা শাহজাহান সিকদার ।এদের মধ্যে ১৬ জন সুস্থ হয়েছেন। অপর ১০০ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে এবং  হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন একজন। 

ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা শাহজাহান সিকদার জানান,
করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ১৮ জন সদর দপ্তর সিদ্দিকবাজার ফায়ার স্টেশনের, ১৯ জন তেজগাঁও ফায়ার স্টেশনের, ১৭ জন অধিদপ্তরের বিভিন্ন শাখার, ৯ জন সদরঘাট ফায়ার স্টেশনের, ১১ জন হাজারীবাগ ফায়ার স্টেশনের, ৭ জন ঢাকা কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের, ৭ জন ডি.ই.পি.জেট ফায়ার স্টেশনের (সাভার), ৮ জন সাভার ফায়ার স্টেশনের, ১ জন লালবাগ ফায়ার স্টেশনের, ১ জন মোহাম্মদপুর ফায়ার স্টেশনের, ২ জন মানিকগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের, ৪ জন চট্টগ্রাম লামার ফায়ার স্টেশনের, ১ জন ডেমরা ফায়ার স্টেশনের, ৪ জন খিলগাঁও ফায়ার স্টেশনের, ২ জন মুন্সিগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের, ১ জন পলাশী ফায়ার স্টেশনের, ১ জন বড়লেখা ফায়ার স্টেশনের (সিলেট), ১ জন সালতা ফায়ার স্টেশনের (ফরিদপুর), ১ জন সৈয়দপুর ফায়ার স্টেশনের (নীলফামারী) এবং ২ জন পোস্তগোলা ফায়ার স্টেশনের কর্মী। 
ফায়ার সার্ভিসের শতাদিক কর্মী করোনায় আক্রান্ত

তিনি আরো জানান, আক্রান্তদের পূর্বাচল মাল্টিপারপাস ফায়ার সার্ভিস সেন্টার ও রূপগঞ্জের ইউসুফগঞ্জ স্কুল (নারায়ণগঞ্জ), বায়েজিদ ফায়ার স্টেশন (চট্টগ্রাম), সালতা ফায়ার স্টেশন (ফরিদপুর), ১০০ শয্যা বিশিষ্ট সৈয়দপুর হাসপাতালে ১ জন চিকিৎসাধীন আছেন, ৬ জনকে বাসায় রাখা হয়েছে এবং বাকীদের বিভিন্ন স্থানে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেনটাইনে রাখা হয়েছে ।

আক্রান্তদের মধ্যে ১৬ জনের পর পর দুইবার নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হওয়ায় তাদের সুস্থ ঘোষণা করা হয়েছে। সদরঘাট ফায়ার স্টেশনের ৯ জনের মধ্যে ৯ জনই সুস্থ এবং অন্য সুস্থরা হলেন ২ জন অধিদপ্তরের, ২ জন সিদ্দিকবাজার ফায়ার স্টেশনের, ১ জন কন্টোল রুমের ও পোস্তগোলা ফায়ার স্টেশনের ২ জন। 

সুত্র ঃসময় নিউজ

Post a Comment

0 Comments