আত্নহত্যা নয় বরং খুন করা হয়েছে সুশান্ত সিং কে !!!!

আত্নহত্যা নয় বরং খুন করা হয়েছে সুশান্ত সিং কে,সুশান্ত সিং রাজপুত,susant sing rajput,সুশান্ত সিং আত্নহত্যা,সুশান্ত সিং,সুশান্ত,সুশান্ত সিং মৃত্যু

আচ্ছা একটা কথা বলুন তো আপনার কি এই ছবিটি দেখে এক বারের জন্যেও মনে হতে পারে জেই এই ছেলেটি আত্নহত্যা করেছে বা এই হাস্যজ্জ্বল ছবিটি জার তিনি আত্নহত্যা করতে পারেন???

কিন্তু আপনাদের কারো এটা মনে না হলেও,অবিশ্বাস্য জনক হলেও কথা টা  একদম সঠিক ।আত্ন্যহত্যা করেছেন বলিউডের উদীয়মান জনপ্রিয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত ।আপাত দৃষিটিতে পুলিশ এটিকে আত্নহত্যা বলছেন ।

মুম্বাইয়ে নিজের বাড়িতে  রোববার সকালে  তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়  এখন পর্যন্ত তার আত্মহত্যার কারণ জানা যায় নি, কোনসুইসাইড নোটও মেলেনি’ তার বাসা থেকে ।

ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শনিবার রাতে দেরিতে ঘুমাতে গিয়েছিলেন সুশান্ত সিং৷ দুপুর পর্যন্তও কোন সাড়া না পেয়ে তার বন্ধুদের খবর দেন গৃহকর্মী৷ পরে তারা দরজা ভেঙ্গে তরুণ এই অভিনেতাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান৷

অন্যদিকে সুশান্ত সিং এর এই অকাল মৃত্যুকে আত্নহত্যা মেনে নিতে নারাজ তার পরিবার ।তারা বলছেন আত্নহত্যা নয় ,বরং পরিকল্পিত ভাবে খুন করা হয়েছে বলিউডের এই উদীয়মান তরুন অভিনেতাকে ।

আরসি সিং নামের এক আত্নীয় জানিয়েছেন সুশান্ত সিং অনেক সাহসী একজন ছেলে ছিলেন।তিনি কখনো আত্নহত্যা করতে পারেন না ।আরসি সিং দাবি করেছেন সুশান্ত সিং আত্নহত্যা করেন নি ,বরং খুন করা হয়েছে তাকে ।এমনকি আরসি সিং সিবিআই তদন্তেরো দাবি জানিয়েছেন ।তিনি আরো উল্লেখ করেন, কয়েকদিন আগেই তার প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সাইলানের মৃত্যু হয় তাকেও খুন করা হয়েছে বলে দাবি করেন সুশান্তের এই আত্মীয়

অন্যদিকে  সুশান্ত সিংয়ের বাবা কেকে সিংও একই অভিযোগ করেছেনতিনিও জানান তার ছেলে আত্নহত্যা করেন নি বরং তাকে খুন করা হয়েছে সুশান্ত সিং এর বাবা কেকে সিং তার ছেলের এই অকাল মৃত্যর জন্য বলিউডকে অভিযুক্ত করেছেন

আত্নহত্যা নয় বরং খুন করা হয়েছে সুশান্ত সিং কে,সুশান্ত সিং রাজপুত,susant sing rajput,সুশান্ত সিং আত্নহত্যা,সুশান্ত সিং,সুশান্ত,সুশান্ত সিং মৃত্যু

৩৪ বছর বয়সী এই  বলিউড নায়কের বাবা কেকে সিং পুলিশকে বলেছেন, ‘গত কয়েক মাসে দুই-তিনবার সুশান্ত বলেছে যে করোনার লকডাউনে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির টেনশনের কারণে মানসিকভাবে খুব অস্থিরতার ভিতর দিয়ে যাচ্ছে

 তিনি আরও বলেছেন, ‘আমি সুশান্তের কাছে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে চেয়েছিলাম চেষ্টা করেছিলাম তাকে মানসিকভাবে একটু হালকা করতে, ভালো বোধ করাতে সুশান্ত বলেছিল যে সে নিজেই এর থেকে বের হয়ে আসবে আর বলেছিল, সবকিছু ঠিক হয়ে যাবেসুশান্তের বাবা আরও বলেন, ‘আমার ছেলে সব সময় দুঃখ অনুভব করত কিন্তু আমি জানতাম না যে সে এতটা তীব্রভাবে মানসিক অবসাদে ভুগছে

সুশান্তের এক বোন বলেছেন যে,’তাঁর ভাই ছয় মাস ধরে মানসিক অবসাদের শিকার ছিলেন আর সুশান্তের চিকিৎসা চলছিল বলেও তিনি জানিয়েছেন কিন্তু কয়েক দিন ধরে সুশান্ত ওষুধ নেওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন

 সুশান্ত সিং রাজপুত এর অকাল মৃত্য যেমন মেনে নিতে পারছে না তার পরিবার এবং তার ফ্যানেরা ঠিক তেমনি ভাবে তার এই অকাল মৃত্য কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না বলিউড পারার অনেকেই

ঠিক তেমনি ভাবে সুশান্ত সিং এর এই অকাল মৃত্য মেনে নিতে পারছেন না  পরিচালক শেখর কাপুর তার মৃত্যর পর এক টুইট বার্তায় তিনি  লিখেছেন, ''আমি জানতানম তুমি কী যন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছো আমি সেই খারাপ মানুষগুলির কথা জানতাম, যাঁরা তোমায় টেনে নিচে নামাতে চেয়েছিল তুমি আমার কাঁধে মাথা রেখে কাঁদতে পারতে আমার গত ৬ মাস যদি তোমার সঙ্গে থাকতাম, তাহলে খুব ভালো হতো যদি তুমি আমার কাছে পৌঁছতে পারতে ভালো হতো যা ঘটেছে, সেটা তোমার কর্মফল নয় '

সোমবার দুপুরেই সুশান্ত সিং এর শেষ কৃত্ব্য সম্পন্ন করা হয়।সবাইকে কাদিয়ে অজানার দেশে পারি জমান বলিউডের এই উদীয়মান জনপ্রিয় অভিনেতা ।শুধু রেখে যাবে তার সৃতি গুলো থেকে যাবে তার অসাধরন কর্ম।কিন্তু সবার মনে জেই প্রশ্ন টা সবচেয়ে বেশি আসবে সেটা হলো,সত্যি কি সুসাইড করেছিলেন এই জনপ্রিয় অভিনেতা,আর যদি সত্যি সুসাইড করে থাকেন তা হলে কেন করেছেন ,কি ছিলো না তার নাম ,ফেম,টাকা-পয়সা সবকিছুই তো ছিলো তবে কেন সুসাইড করলেন সুশান্ত সিং রাজপুত??????

 উল্লেখ থাকে যে , শুরুতে ছোট পর্দার মাধ্যমে মিডিয়ে জগতে পা রাখলেও পরবর্তীতে চলচ্চিত্রে বেশ সফলতার পরিচয় দিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত।২০১৩ সালে 'কাই পো চে' দিয়ে চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার শুরু করা মি. সিং আমির খানের সুপারহিট ছবি 'পিকেতে'ও কাজ করেছিলেন।তবে তিনি সবার নজরে এসেছেন 'এমএস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি' বায়োপিক চলচ্চিত্রে মূখ্য চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে।এছাড়া 'ডিটেকটিভ বোমকেশ বক্সি', 'শুধ দেশি রোমান্স' এবং 'কেদারনাথ' চলচ্চিত্রে তার অভিনয় বেশ প্রশংসিত হয়েছে।সবশেষ 'ছিচোড়ে' চলচ্চিত্রে অভিনয় করে বেশ খ্যাতি কুড়িয়েছেন তরুণ এই অভিনেতা। এই চলচ্চিত্রের মূখ্য বার্তাই ছিল আত্মহত্যার বিরুদ্ধে, জীবনের ইতিবাচক দিকগুলোর প্রতি মনোযোগ দেয়াকে ঘিরে।


Post a Comment

0 Comments