৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ করে রিট !!!!

৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ করে রিট

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস এর কারনে প্রায় ২ মাসেরও বেশি সময় সাধারন ছটির আওতায় ছিল পুরো বাংলাদেশ।সাধারন ছটির সময় পুরো বাংলাদেশ ছিল লকডাউন।বাংলাদেশের সরকারি বেসরকারি অফিস আদালত,শিক্ষা প্রতিষ্টান সব কিছু ছিল বন্ধ।সেই সাথে বন্ধ ছিল সকল ধরনের গন পরিবহন। 
দীর্ঘ ২ মাস পর গত  ৩১ মে শেষ হয়েছে সাধারন ছুটি ,সেই সাথে বাংলাদেশ থেকে লকডাউন তুলে নেওয়া হয়েছে। খুলে দেওয়া হয়েছে সরকারি বেসরকারি সকল অফিস আদালত এবং বিভিন্ন প্রতিষ্টান এবং বলা হয় সকল গন পরিবহন খুলে দেওয়ার কথা।

গন পরিবহন খুলে দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু শর্ত জারি করা হয়।আর এখানেই হয়ে জায় সমস্যা।বাংলাদেশ সরকার থেকে  জারি করে সকল গন পরিবহনে সামাজিক দুরুত্ব নিশ্চিত করতে হবে এবং অর্ধেক যাত্রী নিতে হবে।

বাংলাদেশ সরকারের এমন নির্দেশের বিপরিতে সকল গন পরিবহনের ভাড়া ৮০ শতাংশ বারানোর প্রস্তাব করেছিল বিআরটিএ ।

পরবর্তীতে  বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে 
কাঁটছাট করে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়িয়ে রোববার (৩১ মে) প্রজ্ঞাপন জারি করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। এবং ১ জুন থেকে ঢাকা মহানগর ও পার্শ্ববর্তী এলাকা এবং চট্টগ্রাম মহানগরসহ দেশের সব আন্তঃজেলা রুটে বাড়তি এ ভাড়া কার্যকর করার কথা বলা হয়ে থাকলেও  ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির করে জারি করা প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে ।
হাই কোর্টে রিট করার ফলে গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির  প্রজ্ঞাপনটি স্থগিত হয়ে জাচ্ছে ।
গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির করে জারি করা প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। সোমবার (১ জুন) রিটটি দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হুমায়ন কবির পল্লব। বিচারপতি জেবিএম হাসানের হাইকোর্টের ভার্চুয়াল বেঞ্চে রিটটি শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ করে রিট

আইনজীবী হুমায়ন কবির পল্লব জানান, গণপরিবহনে দেশের সাধারণ মানুষেরা যাতায়াত করেন। যাদের প্রাইভেট গাড়ি নেই। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষেরা গণপরিবহনে যাতায়াত করেন। দেশের এ পরিস্থিতিতে কোন যুক্তিতে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। যেখানে সাধারণ মানুষের আয় রোজগার বন্ধ।

আইনজীবী বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় আমাদের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এবং নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের অধিকাংশ কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এ অবস্থায় ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করে প্রজ্ঞাপন জারি অসহায় দুর্দশাগ্রস্ত মানুষদের আরও বেশি বিপর্যস্ত ও হতাশাগ্রস্ত করেছে। 

এ কারণে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির করে জারি করা প্রজ্ঞাপনটি চ্যালেঞ্জ করে প্রজ্ঞাপনটি স্থগিত চাওয়া হয়েছে।



Post a Comment

0 Comments